অনলাইনে যেভাবে চলত ক্যাসিনো

0
5

প্রথমে একজন জুয়াড়িকে মোবাইলে টি-২১ ও পি-২৪ নামের দুটি অ্যাপস ডাউনলোড করতে হতো। পরে অ্যাপসগুলো থেকে তার পছন্দমতো গেম বাছাই করতেন। এরপর শুরু হতো খেলা। জিতলে টাকা জমা হতো জুয়াড়ির নির্দিষ্ট ব্যাংক অ্যাকাউন্টে, আর হারলে টাকা কাটা যেত ওই একই অ্যাকাউন্ট থেকে। এভাবেই অনলাইনে ক্যাসিনো ব্যবসা চালিয়ে আসছিলেন সেলিম প্রধান। এভাবেই অনলাইনে ক্যাসিনো খেলার প্রক্রিয়া বর্ণানা করেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম। গতকাল অনলাইন ক্যাসিনো বাণিজ্যের হোতা সেলিম প্রধানের গুলশানের বাসায় অভিযান শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তিনি। তিনি বলেন বলেন, অনলাইনে ক্যাসিনো কার্যক্রমে অংশ নেওয়ার আগে প্রত্যেক জুয়াড়িকে নির্দিষ্ট ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খুলতে হতো। এখন পর্যন্ত এমন তিনটি ব্যাংকের পেয়েছি আমরা। ব্যাংকগুলো হলো যমুনা ব্যাংক, কমার্শিয়াল ব্যাংক ও সিলং ব্যাংক। অ্যাকাউন্টগুলোয় নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা রাখতে হতো। খেলায় জিতলে বা হারলে ওই অ্যাকাউন্টে টাকা যোগ হতো বা কাটা যেত। র‌্যাব জানায়, অনলাইনে বিশ্বের সুপরিচিত ক্যাসিনোগুলোর সঙ্গে জুয়াড়িদের যুক্ত করার কাজ করতেন সেলিম। সফটওয়ার ও অনলাইনে ক্যাসিনো খেলার অন্য সামগ্র বিদেশ থেকে আমদানি করেন সেলিম প্রধান। এসব দেশে এনে গুলশানের বাসায় বসেই অন্তর্জালে ক্যাসিনো সাম্রাজ্য খুলে বসেন সেলিম। এভাবে হাতিয়ে নেন কোটি কোটি টাকা।

LEAVE A REPLY