জামিন পেলে চিকিৎসা নিতে বিদেশ যাবেন খালেদা জিয়া : হারুনুর রশিদ

0
6

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আজ জামিন পেলে চিকিৎসার জন্য কাল বিদেশ যাবেন বলে জানিয়েছেন চাপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের এমপি ও দলের যুগ্মমহাসচিব হারুনুর রশিদ। আজ মঙ্গলবার নেত্রীর সঙ্গে দেখা করে আসার পর সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি। বিকেল চারটায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কারাবন্দী চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেন হারুনুর রশিদ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের এমপি উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের এমপি আমিনুল ইসলাম। নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথমবার এই তিন সংসদ সদস্য (এমপি) চেয়ারপরসনের সঙ্গে দেখা করেন।

বাঁ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের এমপি উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের এমপি আমিনুল ইসলাম ও চাপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের এমপি

বিএনপির যুগ্মমহাসচিব হারুনুর রশিদ বলেন, ‘জামিনে মুক্তি পেলে চিকিৎসকদের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য অবশ্যই চেয়ারপারসন বিদেশে চিকিৎসা করতে যাবেন। উনি আজকে জামিন পেলে কালকেই বিদেশ যাবেন। উনি যদি আজকে জামিন পান, প্রথম অগ্রাধিকার হবে উনার চিকিৎসা।’ হারুনুর রশিদ বলেন, ‘এমপি হওয়ার পর ম্যাডামের সাথে দেখা করতে যাওয়া হয়নি। আমরা ম্যাডামের শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নিতে গিয়েছিলাম। যা দেখলাম তা খুবই অমানবিক। শারীরিকভাবে তিনি খুবই অসুস্থ। অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি চলাফেরা করতে পারেন না। ম্যাডাম এতটাই অসুস্থ নিজে মুখে তুলে খেতেও পারেন না। এই অবস্থায় তাকে দ্রুত বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া প্রয়োজন।’ আরেক প্রশ্নের জবাবে হারুনুর রশিদ বলেন, ‘ম্যাডাম দল ও দেশের খোঁজ-খবর নিয়েছেন। দেশের বর্তমান গণতান্ত্রিক অবস্থায় হতাশা প্রকাশ করেছেন।’ তিনি আরও বলেন, নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ম্যাডাম বলেছেন, ‘আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’ এ সময় প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে খালেদা জিয়াকে কোনো প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে কি না এমন প্রশ্ন করা হলে তিন এমপির কেউ সরাসরি বিষয়টি নিয়ে কোনো উত্তর দেননি। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের এমপি ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘আধা ঘণ্টা ম্যাডামের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।’ এ সময় হঠাৎ করে কেন নেত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গেলেন জানতে চাইলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজ আসনে জয়ী বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘হঠাৎ করে আমরা দেখা করতে যাইনি। এতদিন দেখা করতে যাইনি আমরা তো আমানবিক কাজ করেছি। আসলে আমাদের তার সঙ্গে দেখা করতে যেতে দেওয়া হয়নি।’ এ সময় খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া বলেন, ‘আমরা মুক্তির বিষয়ে আপ্রাণ চেষ্টা করছি, তা ম্যাডামকে বলেছি।’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের কেবিন ব্লকে এদিন ৩০ মিনিট দলীয় প্রধানের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করেন এই তিন সাংসদ। এ সময় তাদের মধ্যে দেশ ও দল নিয়ে বিভিন্ন আলোচনা হয়। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। রায় ঘোষণার পরই সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা দিয়ে সেখানে রাখা হয়। শারীরিকভাবে অসুস্থ খালেদা জিয়া বর্তমানে বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন।

LEAVE A REPLY