থানায় অভিযোগ জানিয়ে গায়ে আগুন দেওয়া সেই কলেজছাত্রী আর নেই

0
19

রাজশাহীর শাহ মখদুম থানায় অভিযোগ জানিয়ে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করা দগ্ধ কলেজছাত্রী লিজা রহমান (১৮) মারা গেছেন। আজ বুধবার সকালে রাজধানীর ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ঢামেক হাসপাতালে বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পার্থ শঙ্কর পাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বুধবার সকাল সাড়ে ৭টায় লিজার মৃত্যু হয়। তার শরীরের ৬৪ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল। এর আগে গতকাল সোমবার মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নাসিমা বেগম লিজাকে দেখতে গিয়েছিলেন। লিজা রহমান গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ও রাজশাহী মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। তার স্বামী সাখাওয়াত হোসেনের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলায়। উল্লেখ্য, গত শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে নগরীর শাহ মখদুম থানার পাশে কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সামনে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেন ওই কলেজছাত্রী। এদিন দাম্পত্য কলহ নিয়ে থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর বাইরে এসে তিনি এ ঘটনা ঘটান। রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার ও মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, স্বামীর সঙ্গে পারিবারিক সমস্যা হওয়ায় লিজা শাহ মখদুম থানায় অভিযোগ জানাতে যান। সেখানকার ওসি মাসুদ রানা তাকে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে অভিযোগ করতে বললে সেখানে একটি ডায়রি করেন তিনি। সেখানে নাম-ঠিকানা বলার পর মামলা করবে কি না জানতে চাওয়া হয়। কিন্তু কী করবেন মনস্থির করতে না পেরে বাইরে এসে শরীরে আগুন দেন ওই নারী। পরে স্থানীয়রা লিজাকে উদ্ধার করে প্রথমে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওইদিন বিকেল ৫টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। এরপর থেকে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটেই চিকিৎসাধীন ছিলেন লিজা। অবশেষে আজ সকালে মৃত্যুর কাছে হার মানেন এই কলেজছাত্রী।

LEAVE A REPLY