কি করে ‘তারা’ এই চেয়ারে বসার সাহস পান : ওমর সানী

0
9

কয়েকদিন পরেই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে নির্বাচনী প্রস্তুতি। চলছে আলোচনা-সমালোচনাও। একঝাঁক তারকা শিল্পীদের নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। কিন্তু হঠাৎই তার পাশ থেকে সবাই সরে গেলেন। জানা গেছে, ২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির ২০১৯-২১ দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি পদে সতন্ত্র থেকে লড়বেন মৌসুমী। আর সাধারণ সম্পাদক পদে অভিনেতা ডিএ তায়েবের নির্বাচন করার বিষয়টিও এখন অনিশ্চয়তার মধ্যে আছে।শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে অনেকেই নানা চক্রান্ত করার চেষ্টা করছেন বলে দাবি করছেন চিত্রনায়িক ওমর সানী। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তিনি তুলে ধরেছেন তার নিজস্ব মন্তব্য। এবার ফেসবুকে সমিতির প্রাক্তন সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে নিয়ে লিখেছেন ওমর সানী। সঙ্গে প্রকাশ করেছেন কয়েকটি ছবিও।

পাঠকদের জন্য তার লেখা হুবহু তুলে ধরা হলো- ‘গতকাল ৪/১০/২০১৯ রোজ শুক্রবার হয়ে গেল আমাদের শিল্পী সমিতির এজিএম। ঠিক দুপুর থেকে সন্ধ্যার মধ্যে যেকোনো এক মুহূর্তের এই ছবিগুলো। আপনারা সবাই জানেন, শিল্পী সমিতির সভাপতি সেক্রেটারি এখন প্রাক্তন। তাদের কোনো ক্ষমতাই নাই। পুরো সমিতির দায়িত্বে আছেন নির্বাচন কমিশনার, আমাদের শ্রদ্ধেয় কাঞ্চন ভাই। কিন্তু তার অনুপস্থিতিতে আমি জানি কাঞ্চন ভাই জানে না, আমার বিশ্বাস। কি করে এই দুই চেয়ারে এখন তারা বসেন। তারা তো ওই চেয়ারে বসতে পারে না। অন্য শিল্পীরা যারা ছিলেন তাদের তো কোন দোষ নেই। মিশা, জায়েদ, কি করে সাহস পান। কাঞ্চন ভাই আপনার ওপরে অগাধ বিশ্বাস। আপনি দেখবেন বিষয়টি। আমার সহশিল্পীদের উদ্দেশে বলছি। আমি কি কোনো ভুল বললাম। ভুল হলে শুধরে নেবো। ক্ষমা করবেন।’ উল্লেখ্য, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক মেয়াদে (২০১৭-১৯) গত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৭ সালের ৫ মে। এরপর নতুন করে এবারের নির্বাচন আয়োজন করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY