প্রধানমন্ত্রীর হাতে চার মন্ত্রণালয় ও দুই বিভাগ

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা টানা তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন আজ। এর মধ্য দিয়ে দেশের ইতিহাসে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সর্বোচ্চ চারবার সরকার পরিচালনার রেকর্ড গড়বেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালে প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন তিনি।এর পর ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত নবম এবং ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত দশম সংসদ নির্বাচনের পর টানা দুই মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনেও বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ। এরই ধারাবাহিকতায় সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা হিসেবে আজ চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন তিনি।এবারের মন্ত্রিসভায় চারটি মন্ত্রণালয় ও দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ থাকছে শেখ হাসিনার দায়িত্বে। মন্ত্রণালয়গুলো হচ্ছে-জনপ্রশাসন; প্রতিরক্ষা; বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ এবং মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এ ছাড়া মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও সশস্ত্র বাহিনী বিভাগও থাকছে প্রধানমন্ত্রীর অধীনে। নিয়মানুযায়ী, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সব সময়ই প্রধানমন্ত্রীর অধীনে থাকে। তিনি চাইলে অন্য বিভাগ ও মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব অন্যদের হাতে দিতে পারেন। এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ ৪৭ সদস্যের মন্ত্রিসভা হচ্ছে। গত ৩ জানুয়ারি শপথ নেন নতুন সাংসদরা। নিয়ম অনুযায়ী ওই দিন দুপুরে পার্লামেন্টারি বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে দলনেতা নির্বাচিত হন শেখ হাসিনা।