ধর্ষণে কিশোরী শ্যালিকা অন্তঃসত্ত্বা, গ্রেপ্তার দুলাভাই

সিলেটে শ্যালিকাকে ধর্ষণ করে গর্ভবতী বানানোর অভিযোগ উঠেছে তার দুলাভাইয়ের বিরুদ্ধে। গতকাল রোববার রাতে অভিযুক্ত রাসেল মিয়াকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাসেল বিশ্বনাথ উপজেলার পুরান সৎপুর গ্রামের ইছদ্দর আলীর ছেলে। বিশ্বনাথ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুদ্দোহা জানান, প্রায় দুই বছর আগে নিজ গ্রামের এক মেয়েকে বিয়ে করেন রাসেল। তাদের এক বছরের একটি কন্যা সন্তানও আছে। একই গ্রামে শ্বশুর বাড়ি হওয়ার সুবাদে প্রতিদিন সেখানে যাতায়াত করতেন রাসেল। এই সুযোগে অভিযুক্ত তার শ্যালিকাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করতে থাকে। একপর্যায়ে ওই কিশোরী (১৪) প্রায় চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে ঘটনাটি লোকমুখে এলাকার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। রাসেলের শ্বশুর প্রতিবন্ধী হওয়ায় শাশুড়ি গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে গিয়ে দিনমজুরের কাজ করেন। স্থানীয় মাতব্বরা বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করলে তা জানতে পারে থানা পুলিশ। এরপর রোববার রাতে অভিযুক্ত রাসেল মিয়া ও তার শ্যালিকাকে থানায় ডেকে আনে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়। একইদিন ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে বিশ্বনাথ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পরে সেসময়ই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে রাতেই নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০৩ এর সংশোধনী ৯ (ক) ধারায় থানায় মামলা রেকর্ড করা হয়।