ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদলের নেতৃত্বে মোস্তাফিজ-অনিক-খোরশেদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে প্যানেল ঘোষণা করেছে ছাত্রদল, প্রগতিশীল ছাত্র জোট ও সা¤্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য নিয়ে গঠিত বামজোট এবং কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফরম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। গতকাল সোমবার মধুর ক্যান্টিনে পৃথক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সংগঠনগুলো চূড়ান্ত প্যানেল ও প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে। ছাত্রদলের প্যানেলে ভিপি পদে রয়েছেন সলিমুল্লাহ মুসলিম হল শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান, জিএস পদে শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার অনিক এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক খোরশেদ আলম সোহেল লড়বেন এজিএস পদে। তবে এমফিলে ভর্তি হওয়ার পর মোস্তাফিজুর রহমানের হলের সংযুক্তি পরিবর্তন হয়ে সূর্যসেন হল হয়েছে। বাম জোটের প্যানেলে ভিপি পদে লড়বেন ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী, জিএস পদে ছাত্র ফেডারেশনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি উম্মে হাবিবা বেনজির এবং এজিএস পদে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ঢাবি শাখার সহসভাপতি সাদিকুল ইসলাম সাদিক। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ প্যানেলে ভিপি পদে লড়বেন সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর, জিএস পদে যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান এবং এজিএস হিসেবে আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হাসান। সোমবার বিকালে সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রদলের প্যানেল ঘোষণা করেন সংগঠনের ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক বাশার সিদ্দিকী। এ সময় ছাত্রদল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদারও উপস্থিত ছিলেন। প্যানেলের বাকি পদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক পদে রয়েছেন জাফরুল হাসান নাদিম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক পদে মাকসুদুর রহমান, কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়াবিষয়ক সম্পাদক পদে কানেতা ইয়ালাম, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক পদে আশরাফুল আলম উজ্জল, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে মিনহাজ আহমেদ প্রিন্স, সাংস্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক পদে কাইয়ূম উল ইসলাম, ক্রীড়া সম্পাদক পদে মনিরুজ্জামান মামুন, ছাত্র পরিবহনবিষয়ক সম্পাদক পদে মাহফুজুর রহমান চৌধুরী, সমাজসেবা সম্পাদক পদে তৌহিদুল ইসলাম। সদস্য পদে মনোনয়ন পেয়েছেন হাবিবুল বাশার, আরিফ হোসেন, ইকবাল হোসাইন, সাঈদ বিন আনোয়ার, সাহাব উদ্দিন, মাহমুদুল হাসান, সাফায়াত হাসনাইন সাবিত, তানভীর আজাদী সাকিব, সুলতান মো. সালাউদ্দিন সিদ্দিক, মো. শরীফুল ইসলাম, ইমাম আল নাসের মিশুক, আলমগীর হোসেন ও আবুল বাশার। দুপুর ১২টার দিকে পৃথক সংবাদ সম্মেলনে বামজোটের প্যানেল ঘোষণা করেন প্রগতিশীল ছাত্র জোটের সমন্বয়ক ইমরান হাবিব রুমন। প্যানেলে বাকি পদগুলোয় মনোনয়ন পেয়েছেন মুক্তযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক পদে রাজিব কান্তি রায়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক উলুল আমর তালুকদার, কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক পদে সুহাইল আহমেদ শুভ, আন্তর্জাতিক সম্পাদক পদে মীম আরাফাত, সাহিত্য সম্পাদক পদে রাজিব দাস, সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে ফাহাদ হাসান আদনান, ক্রীড়া সম্পাদক পদে শুভ্রনীল রায়, ছাত্র পরিবহন সম্পাদক পদে হাসিব মো. আশিক এবং সমাজসেবা সম্পাদক পদে ফয়সাল মাহমুদ। সদস্য পদের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন মঈনুল ইসলাম তুহিন, আমিনুল ইসলাম, আদজাদ হোসেন, আফনান আক্তার, মিত্রময়, সালমান ফারসি, রাহাতিল রাহাত, আরমানুল হক, জেসান অর্ক, মনীষা আখতার, মাহির ফারহান খান, উদয় নাফিস এবং মেহেদী। এর আগে সকালে ডাকসু ভবনের সামনে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্যানেল ঘোষণা করেন সংগঠনের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন। প্যানেলের অন্য পদগুলোয় রয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক পদে নাজমুল হুদা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে সোহরাব হোসেন, কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক পদে শেখ এমিলি জামাল, আন্তর্জাতিক সম্পাদক পদে হাবিবুল্লাহ বেলালী, সাহিত্য সম্পাদক পদে আকরাম হোসেন, সাংস্কৃৃতিক সম্পাদক পদে নাহিদ ইসলাম, ক্রীড়া সম্পাদক পদে মামুনুর রশীদ (মামুন), ছাত্র পরিবহন সম্পাদক পদে রাজিবুল ইসলাম এবং সমাজসেবা সম্পাদক পদে আখতার হোসেন। সদস্য পদে মেনানয়ন পেয়েছেন উম্মে কুলসুম বন্যা, রাইয়ান আবদুল্লাহ, সাব আল মাসানী, ইমরান হোসেন, শাহরিয়ার আলম সৌম্য। কৌশলগত কারণে বাকি সদস্যদের নাম ঘোষণা করা হয়নি বলে জানান হাসান আল মামুন। পরে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সংসদের বাকি প্রার্থী ও হল সংসদের প্যানেল জানানো হবে। ছাত্রলীগের বিদ্রোহী প্যানেলের আত্মপ্রকাশ ছাত্রলীগের প্যানেলের পাশাপাশি সংগঠনটির একটি বিদ্রোহী প্যানেলেরও আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। গতকাল বেলা ১১টার দিকে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলনে এ প্যানেল ঘোষণা করা হয়। বিদ্রোহী এ প্যানেলের নাম দেওয়া হয়েছে, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অসাম্প্রদায়িক সাধারণ শিক্ষার্থীদের পরিষদ’। এতে ভিপি পদে রয়েছেন ছাত্রলীগের গত কমিটির কেন্দ্রীয় সহসভাপতি সোহান খান, জিএস পদে জহুরুল হক হলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বুলবুল এবং এজিএস পদে গত কমিটির কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক মোহাম্মদ রনি।অন্য প্রার্থীরা হলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক পদে আল মামুন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে জিএম সাব্বির, আন্তর্জাতিক সম্পাদক পদে তামজিদ হোসেন, সাহিত্য সম্পাদক পদে মাসুদ রানা, ক্রীড়া সম্পাদক পদে গাজী নাবিদ হোসেন। কৌশলগত কারণে প্যানেলের অন্য প্রার্থীদের নাম জানানো হয়নি। পরে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়। তাদের ছাত্রলীগের বিদ্রোহী প্যানেল না বলার অনুরোধ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে জিএস প্রার্থী বুলবুল বলেন, আমরা নিজেদের সাধারণ শিক্ষার্থী ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি। ছাত্রলীগের সঙ্গে আমাদের কোনো সংঘর্ষ নেই। এক প্রশ্নের জবাবে বুলবুল বলেন, যারা গত ৯ মাসের মধ্যে ছাত্রলীগের কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি, তারা ডাকসুতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের কী দেবে? ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ছাত্রদলকে ফুল দিয়ে মধুর ক্যান্টিনে স্বাগত জানায়। যারা বঙ্গবন্ধুকে স্বীকার করে নাÑ তাদের ফুল দিয়ে কীভাবে তিনি নিজেকে মুজিব আদর্শের সৈনিক দাবি করতে পারেন। প্যানেলের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক প্রার্থী আল মামুন বলেন, ছাত্রলীগের প্যানেলে যোগ্যদের মূল্যায়ন হয়নি। তাই আমাদেরও নির্বাচনের অধিকার রয়েছে। সে জন্যই এ প্যানেল ঘোষণা করা হয়েছে।