পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দিন কোথায় লুকিয়ে ছিলেন খালেদা জিয়া, প্রশ্ন কাদেরের

পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দিন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কোথায় লুকিয়ে ছিলেন, তা তদন্ত করলে ঘটনার প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ফেনীর সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। এ সময় পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে মির্জা ফখরুলের অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেও দাবি করেন সেতুমন্ত্রী। এর আগে গতকাল সোমবার রাজধানীর বনানী সামরিক কবরস্থানে পিলখানা বিদ্রোহে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, পিলখানা হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত হয়নি। তিনি বলেন, ‘আমরা পরিজন ও জাতির সঙ্গে একমত, পিলখানা হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত হয়নি। এখানে আরও সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া উচিত বলে আমরা মনে করি।’ ওবায়দুল কাদের বলেন, ‌‘পিলখানার ঘটনার দিন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কোথায় রাখা হয়েছিল? কেন ২৪ ঘণ্টায় তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি? এ লুকিয়ে থাকার নেপথ্যের কারণ খুঁজে বের করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘পিলখানায় বিডিআর বিদ্রোহের দিন বেগম খালেদা জিয়া ২৪ ঘণ্টা কোথায় লুকিয়ে ছিলেন; সে রহস্য উদঘাটিত হলে এ হত্যাকাণ্ডের কারণ উদঘাটিত হবে। পিলখানা হত্যাকান্ড সংগঠিত হওয়ার দিন সকাল বেলা থেকে ২৪ ঘণ্টা তার অবস্থান কেউ জানতো না। মির্জা ফখরুল সাহেব কেঁচো খুঁড়তে চাইলে বিষধর সাপ বেরিয়ে আসবে। ’ খালেদা জিয়ার শারিরিক অবস্থা যতটা না খারাপ, তার চেয়ে বেশি একে রাজনৈতিক রং দেওয়া হচ্ছে বলেও মন্তব্য সেতুমন্ত্রী । তিনি আরও বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়ে উদ্দেশ্যমূলকভাবে কোনো সংবাদকর্মীকে হয়রানি করা যাবে না। এমনটি করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ- আইসিটি আইনে মামলা দুষ্টের দমন শিষ্টের পালনের জন্য বলেও জানান ওবায়দুল কাদের। এ সময় সেখানে ফেনী-২ আসনের এমপি নিজামউদ্দিন হাজারী, জেলা প্রশাসক মো. ওহিদুজ্জামান, জেলা পুলিশ সুপার এএসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার, ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।