বিনা চুক্তিতেই শেষ হলো ট্রাম্প-কিমের বৈঠক

U.S. President Donald Trump and North Korean leader Kim Jong Un pose before their meeting during the second U.S.-North Korea summit at the Metropole Hotel in Hanoi, Vietnam February 27, 2019. REUTERS/Leah Millis

কোনো ধরনের চুক্তির সিদ্ধান্ত না নিয়েই শেষ হয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের দ্বিতীয় ঐতিহাসিক বৈঠক। আজ বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এ ঘোষণা দিয়েছে হোয়াইট হাউস।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারা স্যান্ডার্স জানান, এই মুহূর্তে কোনো চুক্তি করা হয়নি। কিন্তু তাদের নিজ নিজ দল ভবিষ্যতে বৈঠক করার অপেক্ষায় আছে।’

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুরু থেকেই ভিয়েতনামে দ্বিতীয় এই ঐতিহাসিক বৈঠকে দুদেশের নেতার মধ্যে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে একটি চুক্তি ঘোষণা আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছিলো। বৈঠকের আগেই উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জানিয়েছিলেন, তার উপস্থিতিই পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের দিকে ইশারা করছে। গতকাল বুধবার ভিয়েতনামে নৈশভোজের মধ্য দিয়ে দুদিনব্যাপী আলোচনা শুরু করেন ট্রাম্প-কিম।  ট্রাম্প গতকাল কিমকে ‘বন্ধু’ অভিহিত করে বলেন, ‘তার বন্ধু পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি বাতিল করতে সম্মত হলে উত্তর কোরিয়ার ভবিষ্যৎ অত্যন্ত উজ্জ্বল হবে।’ উত্তর কোরীয় নেতার সঙ্গে এ বৈঠকের সমালোচনা করায় ট্রাম্প তার নিজ দেশের সমালোচকদের নিন্দা জানান।  বিবিসি জানিয়েছে, বুধবার রাজধানী হ্যানয়ের মেট্রোপোল হোটেলে দুদেশের পতাকার সারির সামনে দাঁড়িয়ে কিম এবং ট্রাম্প দুজনই হাসিমুখে করমর্দন করেন। সে সময় সাংবাদিকদের ট্রাম্প জানান, আলোচনা খুবই সফল হবে বলে মনে করেন তিনি। তবে উত্তর কোরিয়াকে নিরস্ত্রীকরণের দাবি থেকেও যুক্তরাষ্ট্র সরবে না। কোরিয়া যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করবেন কিনা, এ প্রশ্নের উত্তরে ট্রাম্প বলেন, ‘সেটি আমরা দেখব।’ এদিকে কিমও বৈঠকের আলোচনা খুব সফল হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন। তিনি জানান, তারা ভিয়েতনামে দ্বিতীয় বৈঠক করার পথে বাধা টপকাতে পেরেছেন এবং এখন ধৈর্য ধরা প্রয়োজন।