দেশে ফিরেই যা বললেন অভিনন্দন

প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানে দীর্ঘ ৬০ ঘণ্টা থাকার পর দেশে ফিরেছেন ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন বর্তমান।  নেভি ব্লু ব্লেজার্স, সাদা শার্ট এবং ধুসর রং এর ট্রাউজার্স, কালো চোখে মুখে হাসি নিয়ে পাঞ্জাবের আট্টারি-ওয়াঘা সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে পা রাখেন তিনি। গতকাল শুক্রবার ভারতে ফিরেই প্রথমে পাইলট অভিনন্দন বলেন, ‘এটা ভালো যে, আমার দেশে ফিরতে পেরেছি।’ সীমান্ত পেরোনো পর্যন্ত তাকে এসকর্ট করে নিয়ে আসে পাকিস্তানি রেঞ্জার্সরা।  এ সময় তাকে স্বাগত জানালেন ভারতীয় নিরাপত্তা আধিকারিকরা। এদিকে কোনো প্রশ্ন না নিয়ে একটি ছোট বিবৃতিতে ভাইস এয়ার মার্শাল আরজিকে কাপুর বলেন, ‘তার পূর্ণাঙ্গ শারিরীক পরীক্ষা করা হবে। তাকে অনেক ধকলের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে।’ অভিনন্দন বর্তমানের ফিরে আসতে দেরি হয়। একটি সূত্রের বক্তব্য উদ্ধৃত করে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা প্রেস্ট ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়া জানিয়েছে, সীমান্ত পেরেনোর আগে ক্যামেরার সামনে জোর করে তার ভিডিও স্টেটমেন্ট নেওয়া হয়। তাকে ছাড়ার আগে ভিডিওটি প্রকাশ করে পাকিস্তান। এদিকে অভিনন্দনকে মুক্তির খবরে বিশ্ব জুড়ে সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে উচ্ছ্বাস, দেশজুড়ে সেলিব্রেট করেন রাজনীতিবিদরা। সবচেয়ে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে ফিরে আসার জন্য অভিনন্দন বর্তমানকে স্যলুট জানান ভারতীয়রা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অভিনন্দন বর্তমানের ফিরে আসার পর টুইটে লেখেন, ‘ঘরে ফেরায় অভিনন্দনকে স্বাগত! আপনার দৃষ্টান্তস্বরূপ বীরত্বে দেশ গর্বিত। আমাদের সশ্বস্ত্র বাহিনী ১৩০ কোটি ভারতবাসীর গর্ব। বন্দেমাতরম!’ জাতীয় পতাকা, মালা হাতে নিয়ে আট্টারি-ওয়াঘা সীমান্তে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে থাকেন বহু মানুষ। ভিড় এড়াতে শুক্রবার বিকেলে আট্টারি-ওয়াঘা সীমান্তে পতাকা রিট্টিট বাতিল করে দেওয়া হয়। সূত্রের খবর, অভিনন্দন বর্তমানকে ফিরিয়ে আনতে বায়ুসেনার বিশেষ বিমান পাঠাতে চেয়েছিল নয়াদিল্লি, যদিও সেই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে পাকিস্তান। গত মঙ্গলবার ভারতীয় বিমান বাহিনী পাকিস্তানের আকাশসীমায় প্রবেশ করে বিমান থেকে বোমাবর্ষণ করে। পরদিন বুধবার সকালে দুটি ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিত ও এক পাইলটকে আটক করে পাকিস্তান। পাল্টাপাল্টি হামলায় দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে গত বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘উত্তেজনা নিরসনে ভূমিকা রাখলে আমরা ভারতীয় পাইলটকে হস্তান্তর করতে প্রস্তুত।’ এর পর পাকিস্তান ঘোষণা দেয় যে শান্তির নিদর্শন হিসেবে তাকে মুক্তি দেওয়া হবে।