৫ হাজার টাকায় ৫ টুকরো চিপস!

কুড়মুড়ে চিপস খেতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু সামান্য পাঁচ টুকরো আলুর চিপসের দাম যদি হয় পাঁচ হাজার টাকা, তা হলে কেউ বিশ্বাসই করবেন না হয়তো। তবে অবিশ্বাস্য হলেও সত্যিÑ এমন দামি চিপস তৈরি করেছে সুইডেনের একটি প্রতিষ্ঠান।সুসজ্জিত একটি বাক্সে মাত্র পাঁচ টুকরো আলুর চিপস ভরে ওই দামে বিক্রি করে প্রতিষ্ঠানটি। জানা যায়, এত বেশি দাম হওয়া সত্ত্বেও এই চিপসের কাটতি বেশ ভালোই বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির। প্রায় তিন বছর আগে থেকে এই বিশেষ ধরনের চিপস বিক্রি করতে শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। তখন চিপসসহ বাক্সটির মূল্য ধরা হয়েছিল ৫৯ মার্কিন ডলার (প্রায় পাঁচ হাজার টাকা)। মাত্র এক সপ্তাহেই ১০০টি বাক্স বিক্রি হয়ে যায়। চিপসটির এমন চাহিদা দেখে আবারও তারা নতুন করে বাজারে ওই চিপস ছাড়ে। বর্তমানে এর দাম ৬২ মার্কিন ডলার করে রাখা হয়। এমন দামের পেছনে অবশ্য যথোপযুক্ত কারণও রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির এক মুখপাত্র জানান, চিপসগুলো হাতে তৈরি। আর যেসব উপাদানে এসব চিপস তৈরি করা হয়, সেগুলো বছরের একটি নির্দিষ্ট সময়ে পাওয়া যায়। উপাদানগুলোর জোগান কম থাকায় এই চিপসের এত দাম। বিশেষ উপাদানে তৈরি এসব চিপসে ব্যবহার করা হয় উত্তর সুইডেনের আমারনাসের দুর্গম পার্বত্য এলাকা থেকে বিশেষ এক ধরনের আলু আনা হয়। ৯ বছরে একবার ব্লু হার্ভেস্ট মুনের সময় ওই এলাকায় এ আলুর ফলন হয়। এ ছাড়া ওই চিপসে রয়েছে মাটসুটেক মাশরুম। এটিও উত্তর সুইডেনের ঘনজঙ্গল থেকে সংগ্রহ করতে হয়। বিশেষ ধরনের দস্তানা পরে এই মাশরুম তুলতে হয়, না হলে তা খাবারের উপযোগী থাকে না। ফলে এই সংগ্রহ প্রক্রিয়ায় বিপুল অর্থ ব্যয় হয়ে যায়। এই চিপসের কিছু উপাদান, যেমন ক্রাউন ডিল নামক গাছ পাওয়া যায় অস্ট্রেলিয়ার বারে দ্বীপপুঞ্জে, ট্রাফল সিউইড নামে এক ধরনের ছত্রাক পাওয়া যায় নাফারাও দ্বীপে। আর লেকস্যান্ড পেঁয়াজ ও পেল অ্যালে ওর্ট সুইডেনে খুব কমই মেলে চাহিদার তুলনায়। এসব উপাদানের দামও বেশ চড়া। আর এসব উপাদানের দুষ্প্রাপ্যতা ওই চিপসের এমন দামের পেছনে দায়ী।